প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বিজ্ঞান

প্রাথমিক বিজ্ঞান

*বর্ণনামূলক প্রশ্নোত্তর
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ প্রাথমিক বিজ্ঞান বিষয়ের অধ্যায়-৪ থেকে বর্ণনামূলক প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো। তোমরা মনোযোগসহকারে পাঠ আলোচনাটি পড়বে।
অধ্যায়-৪
প্রশ্ন: ভেজা কাপড় যত দ্রুত সম্ভব শুকানো প্রয়োজন। কিন্তু বাইরে বৃষ্টি হচ্ছে। ঘরের ভেতর কীভাবে আমরা দ্রুত কাপড় শুকাতে পারি?
উত্তর: ভেজা কাপড় দ্রুত শুকানো প্রয়োজন, কিন্তু বাইরে বৃষ্টি হচ্ছে। এ অবস্থায় ঘরের ভেতর কাপড় শুকাতে হলে একটি দড়ি টানিয়ে কাপড় মেলে দিতে হবে এবং দরজা-জানালা খুলে বায়ুপ্রবাহ ঘরে বৃদ্ধি করতে হবে। ঘরে ইলেকট্রিক ফ্যান থাকলে তা ছেড়ে দিয়ে বায়ুপ্রবাহ বৃদ্ধি করলে ভেজা কাপড় দ্রুত শুকিয়ে যাবে। এভাবে বৃষ্টির দিনে আমরা ভেজা কাপড় দ্রুত শুকাতে পারি।
প্রশ্ন: রিসাইকেল-প্রক্রিয়া কীভাবে বায়ুদূষণ কমাতে পারে?
উত্তর: আমরা দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনে যেসব জিনিস ব্যবহার করি, যেমন প্লাস্টিক বাটি, মগ, বালতি ইত্যাদি যখন নষ্ট হয়, তখন এগুলোকে ফেলে দিই এবং যত্রতত্র ফেলে রাখার ফলে মশা-মাছি সৃষ্টি হয়, দুর্গন্ধ ছড়ায়, বৃষ্টির সময় পানি জমে দীর্ঘদিন ধুলাবালু ময়লা-আবর্জনা পড়ে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে এবং বায়ু দূষিত হয়। যদি এগুলোকে পুনর্ব্যবহারের উপযোগী করে তোলা যায়, সেটাকে রিসাইকেল বলে এবং এই রিসাইকেল-প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বায়ুদূষণ রোধ করা যায়।
প্রশ্ন: কী কী কারণে বায়ু দূষিত হয়? মানুষ কীভাবে বায়ুদূষণ করে?
উত্তর: বায়ুদূষণের কারণগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো:
১. কলকারখানা ও গাড়ির ধোঁয়া মিশে বায়ু দূষিত হয়।
২. রাসায়নিক পদার্থ মিশে বায়ু দূষিত হয়।
৩. ময়লা-আবর্জনা পচে দুর্গন্ধ বায়ুতে মিশে বায়ু দূষিত হয়।
৪. বিষাক্ত গ্যাস ও ধূলিকণা মিশে বায়ু দূষিত হয়।
মানুষ যেভাবে বায়ুদূষণ করছে:
১. জীবাশ্ম জ্বালানি পুড়িয়ে বিষাক্ত গ্যাস সৃষ্টির মাধ্যমে।
২. যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলে রেখে, মলমূত্র ত্যাগ করে বায়ুকে দূষিত করছে।
৩. ময়লা-আবর্জনা পুড়িয়ে ফেলায় তা থেকে ধোঁয়া সৃষ্টির মাধ্যমে বায়ু দূষিত হয়।
প্রশ্ন: বায়ুপ্রবাহকে আমরা কী কী কাজে ব্যবহার করতে পারি তা পাঁচটি বাক্যে লেখো।
উত্তর: বায়ুপ্রবাহকে আমরা যে যে কাজে ব্যবহার করতে পারি তা নিচে দেওয়া হলো:
১. বড় চরকা বা টারবাইন ঘুরিয়ে বিদ্যুত্ উত্পাদনে বায়ুপ্রবাহকে ব্যবহার করতে পারি।
২. হাতপাখা বা বৈদ্যুতিক পাখার বায়ুপ্রবাহ ব্যবহার করে শরীর ঠান্ডা রাখতে পারি।
৩. বায়ুপ্রবাহ ব্যবহার করে পালতোলা নৌকা চালাতে পারি।
৪. বায়ুপ্রবাহের মাধ্যমে ভেজা কাপড় শুকাতে পারি।
৫. হেয়ার ড্রায়ারের বায়ুপ্রবাহ ব্যবহার করে ভেজা চুল শুকাতে পারি।
সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর 

অধ্যায়

প্রশ্ন: মানুষ কীভাবে বায়ুপ্রবাহকে দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করে?

উত্তর: বায়ুপ্রবাহকে কাজে লাগিয়ে মানুষ ভেজা কাপড় শুকায়, টারবাইন বা বড় চরকা ঘুরিয়ে বিদ্যুত্ উত্পাদন করে, হেয়ার ড্রায়ারের মাধ্যমে চুল শুকায়, নদীতে পালতোলা নৌকা চালায়।

প্রশ্ন: মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর বায়ুদূষণের ক্ষতিকর প্রভাবগুলো কী?

উত্তর: বায়ুদূষণ মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর এর ক্ষতিকর প্রভাবগুলো হলো:

১. বায়ুদূষণের ফলে ফুসফুসে ক্যানসার হয়;

২. এর ফলে শ্বাসজনিত রোগ হয়;

৩. এর ফলে হূদেরাগও হয়ে থাকে।

প্রশ্ন: বায়ুদূষণ প্রতিরোধের তিনটি উপায় লেখো

উত্তর: বায়ুদূষণ প্রতিরোধের তিনটি উপায় হলো:

১. গাড়ি ব্যবহারের পরিমাণ কমিয়ে দিয়ে হাঁটা বা সাইকেল ব্যবহার করা;

২. যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা না ফেলা;

৩. গাছ লাগিয়ে নতুন বনভূমি সৃষ্টি করা।

প্রশ্ন: বায়ুদূষণ কাকে বলে?

উত্তর: বায়ুর স্বাভাবিক উপাদান পরিবর্তন হওয়াকে বায়ুদূষণ বলে।

প্রশ্ন: বায়ুদূষণের কারণ কী?

উত্তর: মানুষের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড বায়ুদূষণের প্রধান কারণ। যেমন: মানুষ কলকারখানা ও যানবাহন চালাতে জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়াচ্ছে। এর ফলে বায়ুতে বিভিন্ন ক্ষতিকর গ্যাস নির্গত হচ্ছে, যা বায়ুকে দূষিত করছে।

প্রশ্ন: খাদ্য সংরক্ষণে বায়ুর কোন গ্যাস ব্যবহার করা হয়?

উত্তর: মাছ, মাংস, ফল, চিপস ইত্যাদি খাদ্য সংরক্ষণে বায়ুর নাইট্রোজেন গ্যাস ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্ন: উদ্ভিদ বায়ুর কোন উপাদানের সাহায্যে খাদ্য তৈরি করে?

উত্তর: উদ্ভিদ বায়ুর কার্বন ডাই-অক্সাইডের সাহায্যে খাদ্য তৈরি করে।

প্রশ্ন: বায়ু থেকে তুমি কী গ্রহণ করো?

উত্তর: বায়ু থেকে আমি অক্সিজেন গ্রহণ করি।

প্রশ্ন: শ্বাসকষ্টের রোগীদের কী দেওয়া হয়?

উত্তর: শ্বাসকষ্টের রোগীদের সিলিন্ডারের মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়া হয়।

প্রশ্ন: ইউরিয়া সার প্রস্তুত করা হয় বায়ুর কী দিয়ে?

উত্তর: ইউরিয়া সার প্রস্তুত করা হয় বায়ুর নাইট্রোজেন দিয়ে।

প্রশ্ন: বায়ুদূষণের দুটি কারণ লেখো

উত্তর: বায়ুদূষণের দুটি কারণ হলো:

১. জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার;

২. যেখানে-সেখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলা ও মলমূত্র ত্যাগ করা।

প্রশ্ন: বায়ুদূষণ প্রতিরোধের দুটি উপায় লেখো

উত্তর: ১. বাতি বন্ধ রেখে;

২. গাড়ি ব্যবহারের পরিবর্তে সাইকেল ব্যবহার করে।

প্রশ্ন: জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়ালে বাতাসে কী ছড়ায়?

উত্তর: জীবাশ্ম জ্বালানি পোড়ানোর ফলে বাতাসে কার্বন ডাই-অক্সাইড ও অন্যান্য ক্ষতিকর গ্যাস ছড়ায়।

প্রশ্ন: আগুন নেভানোর জন্য কোন গ্যাস ব্যবহার করা হয়?

উত্তর: আগুন নেভানোর জন্য কার্বন ডাই-অক্সাইড গ্যাস ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্ন: চিপসের প্যাকেটে কী গ্যাস থাকে?

উত্তর: চিপসের প্যাকেটে নাইট্রোজেন গ্যাস থাকে।

প্রশ্ন: কোমল পানীয়তে ঝাঁজালো ভাব ধরে রাখতে কী ব্যবহার করা হয়?

উত্তর: কোমল পানীয়তে ঝাঁজালো ভাব ধরে রাখার জন্য কার্বন ডাই-অক্সাইড ব্যবহার করা হয়।

প্রশ্ন: অগ্নিনির্বাপণযন্ত্রে কোন গ্যাস থাকে?

উত্তর: অগ্নিনির্বাপণযন্ত্রে কার্বন ডাই-অক্সাইড গ্যাস থাকে।

প্রশ্ন: কার্বন ডাইঅক্সাইডসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর গ্যাস বায়ুতে বেড়ে যাওয়ায় কী হচ্ছে?

উত্তর: কার্বন ডাই-অক্সাইডসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর গ্যাস বায়ুতে বেড়ে যাওয়ার ফলে পৃথিবীর উষ্ণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে ও অ্যাসিডবৃষ্টি হচ্ছে। অ্যাসিডবৃষ্টির ফলে জীবের ক্ষতি হতে পারে বা জীব মারা যেতে পারে।

প্রশ্ন: বায়ুপ্রবাহের সাহায্যে কীভাবে বিদ্যুত্ উত্পাদন করা হয়?

উত্তর: বায়ুপ্রবাহের সাহায্যে বড় চরকা বা টারবাইন ঘুরিয়ে বিদ্যুত্ উত্পাদন করা হয়।

প্রশ্ন: বায়ুবাহিত তিনটি রোগের নাম লেখো

উত্তর: বায়ুবাহিত তিনটি রোগের নাম হলো:

১. ফুসফুসের ক্যানসার;

২. শ্বাসজনিত রোগ;

৩. হূদরোগ।

প্রশ্ন: কীভাবে অ্যাসিডবৃষ্টি তৈরি হয়?

উত্তর: কলকারখানার ধোঁয়া থেকে সৃষ্ট বিভিন্ন ধরনের গ্যাস মেঘের সঙ্গে মিশে যাওয়ার ফলে অ্যাসিডবৃষ্টি তৈরি হয়।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

Blog at WordPress.com.

Up ↑

%d bloggers like this: