প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন

PSC Bangla Soronio2

প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ রয়েছে বাংলা বিষয়ের ‘স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা।

৯। পাকিস্তানি বাহিনীর প্রথম আক্রমণ হয় কোন শিক্ষাঙ্গনে?

ক. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

খ. জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে Continue reading

Advertisements

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ রয়েছে বাংলা বিষয়ের ‘স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা।

প্রশ্ন: কোন শহিদ বুদ্ধিজীবী প্রথম পাকিস্তান গণপরিষদে বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি জানান?
উত্তর: পাকিস্তান গণপরিষদে বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার প্রথম দাবি জানান শহিদ বুদ্ধিজীবী ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। বাংলাদেশ ১৯৪৮ সাল থেকে পাকিস্তানের সঙ্গে একত্র ছিল। আর তখন একটাই গণপরিষদ কার্যকর হতো। সেটি হলো পাকিস্তান গণপরিষদ।
যেহেতু বাংলাদেশের সব মানুষের ভাষা ছিল বাংলা, তাই ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ১৯৪৮ সালে পাকিস্তান গণপরিষদে দাবি জানান যে বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দেওয়া হোক। মূলত বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার এটাই প্রথম দাবি ছিল।

প্রশ্ন: কোন দিনটিকে ‘শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়? কেন?
উত্তর: ১৯৭১ সালে দীর্ঘ নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ বাঙালি শহিদ হন। এর মধ্যে শক্তিমান, যশস্বী ও প্রতিভাবানদের ধরে নিয়ে ১৪ ডিসেম্বর হত্যা করা হয়। তাই প্রতিবছর ১৪ ডিসেম্বর ‘শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়।

প্রশ্ন: আমরা কেন চিরদিন শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করব?
উত্তর: মাতৃভূমির বিপদে যাঁরা এগিয়ে আসেন তাঁরা আমাদের কাছে চিরস্মরণীয়। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। এই যুদ্ধ ও স্বাধীনতা লাভের পেছনে অনেক মহান মানুষের অসীম অবদান রয়েছে। চিন্তা, বুদ্ধি, মেধা, সময় ও অর্থ দিয়ে তাঁরা সব সময় মানুষের কল্যাণ চিন্তা করেছেন। স্বাধীনতার জন্য তাঁরা নিজেদের জীবন পর্যন্ত বিলিয়ে দিয়েছেন। আমরা তাঁদের চিরদিন স্মরণ করব।
১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে আমরা অনেক মানুষকে হারিয়েছি, তাঁরা দেশ ও মাতৃভাষার জন্য ত্যাগের মহান আদর্শ স্থাপন করে গেছেন। আমরা সেই আদর্শকে অনুসরণ করব। নিজেদের আদর্শ মানুষরূপে গড়ে তোলার জন্য সেই সব মানুষকে আমরা আদর্শরূপে গ্রহণ করব। এ জন্যই তাঁদের আমরা স্মরণ করব।

প্রশ্ন: আমরা কীভাবে শহিদদের ঋণ শোধ করতে পারি?
উত্তর: ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে শহিদ হয়েছিলেন ৩০ লাখ নিরীহ বাঙালি। ১৯৭১ সালে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলেন। আজ আমরা যে স্বাধীনতা পেয়েছি, তা ওই সব শহিদের অবদান। তাঁদের কাছে আমরা ঋণী। এই ঋণ শোধ করতে হলে আমাদের নিজেদের স্বার্থচিন্তার পরিবর্তন করতে হবে। দেশের কল্যাণের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। নিজেদের পরিবর্তনের মাধ্যমে আমরা যদি দেশের সার্বিক কল্যাণ সাধন করতে পারি, তবেই শহিদদের ঋণ শোধ করা সম্ভব।
প্রশ্ন: রণদাপ্রসাদ সাহাকে কেন দানবীর বলা হয়?
উত্তর: এ দেশের সাধারণ মানুষের মঙ্গল ও কল্যাণের জন্য নিজেকে সঁপে দিয়েছিলেন রণদাপ্রসাদ সাহা। দানশীলতার জন্য তাঁকে দানবীর বলা হয়।

প্রশ্ন: কোন সময়কে মুক্তিযুদ্ধের কাল বলা হয়?
উত্তর: ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত—এই নয় মাসকে বলা হয় মুক্তিযুদ্ধের সময়কাল। এই নয় মাস যুদ্ধ করার পর আমরা জয়ী হই, অর্জন করি আমাদের স্বাধীনতা।

প্রশ্ন: জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা কে ছিলেন? তিনি কীভাবে শহিদ হন?
উত্তর: জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন শহিদ বুদ্ধিজীবী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি বাহিনী এ দেশের নিরীহ মানুষের ওপর বর্বর আক্রমণ চালায়। তারা এ দেশকে প্রতিভাশূন্য করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাড়িতেও হামলা চালায়। জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতাকে তারা টেনেহিঁচড়ে বাড়ি থেকে বের করে আনে। তারপর গুলি করে হত্যা করে। এভাবেই তিনি শহিদ হন।

প্রশ্ন: কোন তারিখে পাকিস্তানি সেনারা এ দেশের মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে?
উত্তর: পাকিস্তানি সেনারা ছিল নিষ্ঠুর, নির্মম। তারা ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে এ দেশের মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

প্রশ্ন: দুজন শহিদ সাংবাদিকের নাম লেখো।
উত্তর: দুজন শহিদ সাংবাদিক হলেন শহীদ সাবের ও সেলিনা পারভিন।
 বাকি অংশ ছাপা হবে আগামীকাল
সিনিয়র শিক্ষক
আন-নাফ গ্রিন মডেল স্কুল, ঢাকা

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ রয়েছে বাংলা বিষয়ের ‘স্মরণীয় যাঁরা চিরদিন’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা।

প্রশ্ন: প্রদত্ত শব্দগুলোর অর্থ লেখো।
অবরুদ্ধ, অবধারিত, আত্মদানকারী, নির্বিচারে, বরেণ্য, পাষণ্ড, মনস্বী, যশস্বী।
উত্তর:
প্রদত্ত শব্দ অর্থ
অবরুদ্ধ শত্রু দিয়ে বেষ্টিত, বন্দী
অবধারিত অনিবার্য, নির্ধারিত, যা হবেই
আত্মদানকারী নিজের জীবন উত্সর্গ করেছেন যিনি
নির্বিচারে কোনো রকম বিচার-বিবেচনা ছাড়া
বরেণ্য মান্য
পাষণ্ড নির্দয়
মনস্বী উদারমনা
যশস্বী বিখ্যাত, কীর্তিমান
প্রশ্ন: ঘরের ভেতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করো।
অবরুদ্ধ অবধারিত আত্মদানকারী বরেণ্য
নির্বিচারে যশস্বী পাষণ্ড মনস্বী

ক. তারা বুঝতে পারে যে, তাদের পরাজয় —।
খ. দেশের ভেতরে — জীবন যাপন করতে করতে প্রাণ দেন এ দেশের লাখ লাখ মানুষ।
গ. পাকিস্তানিরা একে একে হত্যা করে এ দেশের মেধাবী, আলোকিত ও — মানুষদের।
ঘ. মুক্তিযুদ্ধে শহিদেরা মহান — হিসেবে চিরস্মরণীয়।
ঙ. পঁচিশে মার্চ রাতে পাকিস্তানি সেনারা — হত্যা করে নিদ্রিত মানুষকে।
চ. অধ্যাপক গোবিন্দচন্দ্র দেব ছিলেন দর্শনশাস্ত্রের — শিক্ষক।
ছ. — কিছু লোক যোগ দেয় ওই সব বাহিনীতে।
জ. রাজাকার বাহিনী এ দেশের অনেক — চিন্তাবিদকে হত্যা করে।
উত্তর:
ক. তারা বুঝতে পারে যে, তাদের পরাজয় অবধারিত।
খ. দেশের ভেতরে অবরুদ্ধ জীবন যাপন করতে করতে প্রাণ দেন এ দেশের লাখ লাখ মানুষ।
গ. পাকিস্তানিরা একে একে হত্যা করে এ দেশের মেধাবী, আলোকিত ও বরেণ্য মানুষদের।
ঘ. মুক্তিযুদ্ধের শহিদেরা মহান আত্মদানকারী হিসেবে চিরস্মরণীয়।
ঙ. পঁচিশে মার্চ রাতে পাকিস্তানি সেনারা নির্বিচারে হত্যা করে নিদ্রিত মানুষকে।
চ. অধ্যাপক গোবিন্দচন্দ্র দেব ছিলেন দর্শনশাস্ত্রের যশস্বী শিক্ষক।
ছ. পাষণ্ড কিছু লোক যোগ দেয় ওই সব বাহিনীতে।
জ. রাজাকার বাহিনী এ দেশের অনেক মনস্বী চিন্তাবিদকে হত্যা করে।
# নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখো।
প্রশ্ন: ১৯৭১ সালের পঁচিশে মার্চ রাতে পাকিস্তানি সেনারা এ দেশে কী করেছিল?
উত্তর: পাকিস্তানি সেনারা পঁচিশে মার্চ মধ্যরাতে ঢাকা শহরের মানুষের ওপর আক্রমণ চালায়। বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও আবাসিক হলগুলোতে চালায় নির্মম হত্যাকাণ্ড। এ ছাড়া শহরজুড়ে চলতে থাকে তাদের নির্মম আক্রমণ। শিশু, বৃদ্ধ, যুবক, যুবতী কেউ তাদের আক্রমণ থেকে বাঁচতে পারেনি। গুলি চালিয়ে, গ্রেনেড ফাটিয়ে আর আগুন ধরিয়ে পুরো শহরকে তছনছ করে দেয় তারা। শুধু পঁচিশে মার্চ রাতেই নয়, এই হত্যাকাণ্ড চলতে থাকে পরবর্তী নয় মাস ধরে।
প্রশ্ন: রাজাকার আলবদর কারা? তাদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে লেখো।
উত্তর: স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় যেসব বাঙালি পাকিস্তানি সেনাদের সহায়তা করত, তারাই রাজাকার ও আলবদর।
মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে এ দেশের কিছু অসাধু, লোভী, পাষণ্ড ও দেশদ্রোহী যোগ দেয় ওই সব বাহিনীতে। ফলে যখন পাকিস্তানি সেনারা এ দেশে জুলুম চালায়, তখন তারা পাকিস্তানি সেনাদের নানাভাবে সাহায্য করতে থাকে। পাকিস্তানিদের সাহায্যকারী এসব মানুষকেই রাজাকার ও আলবদর বলা হয়। রাজাকার, আলবদর বাহিনীর প্রধান কাজ ছিল পাকিস্তানিদের সাহায্য করা। মানুষের সম্পদ ও খাবার লুট করে তারা পাকিস্তানিদের দিত। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের গতিবিধির খবর পাকিস্তানি সেনাদের কাছে পৌঁছে দিত। তাদের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল পাকিস্তানিদের বাঙালি হত্যা পরিকল্পনাকে সফল করে তোলা।
প্রশ্ন: শহীদ সাবের কে ছিলেন? তিনি কীভাবে শহিদ হন?
উত্তর: দৈনিক সংবাদ ছিল প্রগতিশীল একটি সংবাদপত্র। এই পত্রিকার নিয়মিত সাংবাদিক ছিলেন শহীদ সাবের। এ ছাড়া তিনি ছিলেন একজন প্রখ্যাত লেখক। ২৫ মার্চ রাতে শহীদ সাবের বাসায় যেতে পারেননি। পত্রিকা অফিসেই ঘুমিয়ে পড়েন। মাঝরাতেই শুরু হয় পাকিস্তানিদের হত্যাযজ্ঞ। তারা সংবাদ অফিসে আগুন ধরিয়ে দেয়। সেই আগুনেই পুড়ে মারা যান প্রখ্যাত সাংবাদিক ও লেখক শহীদ সাবের।
 বাকি অংশ ছাপা হবে আগামীকাল
সিনিয়র শিক্ষক
আন-নাফ গ্রিন মডেল স্কুল, ঢাকা

 

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

শব্দদূষণ
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ বাংলা বিষয়ের ‘শব্দদূষণ’ কবিতার ওপর আলোচনা করা হবে। তোমরা মনোযোগ সহকারে পাঠ আলোচনাটি পড়বে।

PSC Bangla 6
প্রশ্ন: শব্দগুলোর অর্থ লেখো।
নিশিরাত, কিচিরমিচির, ফেরিঅলা, শব্দদূষণ
প্রদত্ত শব্দ শব্দের অর্থ
নিশিরাত গভীর রাত
কিচিরমিচির পাখির ডাকাডাকির আওয়াজ
ফেরিঅলা রাস্তা বা বাড়ি বাড়ি ঘুরে যারা
জিনিসপত্র বিক্রি করে
শব্দদূষণ অত্যন্ত কোলাহলে শব্দদূষণ ঘটে।
প্রশ্ন: ঘরের ভিতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি কর।
ফেরিঅলা 

ক. ………… চেঁচামেচি করো না, সবাই ঘুমুচ্ছে।
খ. ভোর বেলাতেই পাখির ………… শুনতে শুনতে আমার ঘুম ভাঙে।
গ. ………….. হাঁক দিচ্ছে—থালাবাসন চাই?
ঘ. …………. আমাদের শোনার ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। Continue reading

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

শখের মৃিশল্প

প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ বাংলা বিষয়ের ‘শখের মৃিশল্প’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করা হবে। তোমরা মনোযোগসহকারে পাঠ আলোচনাটি পড়বে।

PSC Bangla 5

প্রশ্ন: টেরাকোটা কী?

উত্তর: প্রাচীনকাল থেকে আমাদের এই বাংলাদেশে মৃিশল্পের চর্চা হয়ে আসছে। প্রাচীন মৃিশল্পের মধ্যে অন্যতম হলো টেরাকোটা। টেরাকোটা একটি লাতিন শব্দ। ‘টেরা’ অর্থ মাটি আর কোটা অর্থ পোড়ানো। আমাদের দেশে একসময় সুন্দর পোড়ামাটির ফলকের কাজ হতো। এরই অন্য নাম টেরাকোটা। নকশা করা মাটির ফলক বা জিনিসগুলো ইটের মতো পুড়িয়ে তৈরি করা হতো টেরাকোটা।

প্রশ্ন: বাংলাদেশের কোথায় পোড়ামাটির প্রাচীন শিল্প দেখতে পাওয়া যায়?

উত্তর: হাঁড়ি, কলসি ছাড়াও আমাদের দেশে একসময় গড়ে উঠেছিল সুন্দর পোড়ামাটির ফলকের কাজ। এর অন্য নাম টেরাকোটা।

নকশা করা মাটির ফলক ইটের মতো পুড়িয়ে তৈরি করা হতো এই শিল্প। বাংলাদেশের ময়নামতির শালবন বিহার, বগুড়ার মহাস্থানগড়, পাহাড়পুর বৌদ্ধ স্তূপ, Continue reading

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

*বীরের রক্তে স্বাধীন এ দেশ
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ বাংলা বিষয়ের ‘বীরের রক্তে স্বাধীন এ দেশ’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করা হলো। তোমরা মনোযোগসহকারে পাঠ আলোচনাটি পড়বে।

PSC Bangla 3

প্রশ্ন: ল্যান্সনায়েক মুন্সী আবদুর রউফের যুদ্ধের ঘটনা লেখো।
উত্তর: সিপাহি আবদুর রউফ ছিলেন ইপিআর বাহিনীর একজন দক্ষ মেশিনচালক। এ ক্ষেত্রে তিনি অনেক সুনাম অর্জন করেন। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের বাঙালি সৈনিকদের মতো তিনিও মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। ১৯৭১ সালের ৮ এপ্রিল মুক্তিযোদ্ধারা পাকিস্তানি নৌসেনাদের ওপর আক্রমণ করার পরিকল্পনা করেন। এ জন্য তাঁরা মহালছড়ির কাছে বুড়িঘাট এলাকার চিংড়ি খালের দুই পাশে অবস্থান নেন। পাকিস্তানি সৈন্যরা মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণ করার জন্য সাতটি স্পিডবোট আর দুটি মোটর লঞ্চ নিয়ে এগিয়ে আসে। মৃত্যু অবধারিত জেনেও মুক্তিযোদ্ধারা পালিয়ে যাননি। আবদুর রউফ দায়িত্ব নিলেন নিজের জীবন দিয়ে সবাইকে রক্ষা করার। হালকা একটি মেশিনগান হাতে তুলে নিয়ে গুলি ছুড়ে শত্রুদের রুখে দিতে থাকলেন। সহযোদ্ধাদের বললেন নিরাপদে সরে যেতে। মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণে পাকিস্তানিদের সাতটি স্পিডবোটই ডুবে গেল।
বাকি লঞ্চ দুটি থেকে গুলি ছুড়তে ছুড়তে তারা পিছু হটতে থাকল। এ রকম মুহূর্তেই হঠাত্ একটি গোলা এসে পড়ল আবদুর রউফের ওপর। বীরের রক্তস্রোতে রঞ্জিত Continue reading

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বাংলা

বীরের রক্তে স্বাধীন এ দেশ
প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ বাংলা বিষয়ের ‘বীরের রক্তে স্বাধীন এ দেশ’ প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করা হবে। তোমরা মনোযোগসহকারে পাঠ আলোচনাটি পড়বে।

প্রশ্ন: প্রদত্ত শব্দগুলোর অর্থ লেখো।
টহল, আসন্ন, অবধারিত, রক্তস্রোতে, রঞ্জিত, শায়িত।
উত্তর:
প্রদত্ত শব্দ অর্থ
টহল পাহারা দেওয়া
আসন্ন নিকটবর্তী
অবধারিত অনিবার্য, যা হবেই, নির্ধারিত
রক্তস্রোতে রক্তের প্রবাহে
রঞ্জিত রং করা হয়েছে এমন
শায়িত শুয়ে আছে এমন

প্রশ্ন: ঘরের ভেতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করো।
নূর মোহাম্মদ শেখ নান্নু মিয়া শিপইয়ার্ডের
১৯৪৩, ৮ মে রুহুল আমিন
ক) ল্যান্সনায়েক নূর মোহাম্মদ শেখের দলে ছিলেন অসীম সাহসী মুক্তিযোদ্ধা —
খ) নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে — সেদিন এভাবেই রক্ষা করেছিলেন মুক্তিযোদ্ধাদের জীবন।
গ) ল্যান্সনায়েক মুন্সী আবদুর রউফ — সালের — মে ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানার সালামতপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। Continue reading